বেড়া পাম্প হাউজের গাছের আম বিক্রির লক্ষ টাকা সহকারি প্রকোশলী রমেশের পকেটে। ,

ডেইলি ভিশন টুয়েন্টিফোর অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৫২ অপরাহ্ণ, মে ২৪, ২০২১

পাবনার বেড়া উপজেলার পানি সেচের প্রবেশদার বেড়া পাম্প হাউজের সরকারি জায়গাই প্রায় একশটি গাছের আম বিক্রির লক্ষ টাকা সহকারি প্রকোশলী রমেশ মন্ডলের পকেটে যাচ্ছে একযুগ ধরে। স্থানীয় সৃত্রে জানা যায় বহুপুরাতন এলাকার সুনাম ধন্য একটি প্রতিষ্ঠান বেড়া পানি উন্নয়নের আওতায় বেড়া পাম্প হাউজে সেখানে দালালদেনর সহায়তায় গড়ে উঠেছে সিন্ডকেট তাদের বস হল সহকারি প্রকোশলী রমেশ বাবু। তার সহকর্মী হল কবির আহমেদ তার বাড়ি বৃশালিখা গ্রামেবাবার নাম সবিল সে ২ বছর হল বেড়া পাম্প হাউজে চাকরি করে যেহেতু তার বাড়ি নিজ এলাকায় সেহেতু তার ক্ষমতার দাপট রয়েছে। বেড়া পাম্প হাউজ তার নিয়ন্ত্রনে সে পাম্প হাউজের জলাশয় থেকে অবৈধ ভাবে বোয়াল, রুই, কাতলা,আড়ৎ মাছ শিকার করে। শুধু তাই না পাম্প হাউজের তৈল পর্যন্ত নড়চড় করে এই কবিরের সাথে এলাকার মানুষ জনেন মাঝে মর্ধে মরধর সহ ঝগড়া ঝাটি হয়ে থাকে। রমেশ বাবুর অবহেলায় সেখানের পিচ বোড ইন্জিল চালিত যান বোড নষ্ট হচ্ছে যার মুল্য কোটি টাকা সব কিছু রমেশ ও কবিরের ছত্রছায়ায় চলছে । সাধারন মানুষের পাম্প হাউজে প্রবেশ নিষেধ হলেও তার আত্বীয় স্বজন সেখানে প্রবেশ করিয়ে তাদের দিয়ে নানা কর্মকান্ড করিয়ে থাকে। শুধু তাই না বেড়া পাম্প হাউজে জলাশয়ে নিজেদেন লোকজন দিয়ে মাছ শিকার করিয়ে তাদের নিকট হতে উৎকোচ নিয়ে থাকে। এলাকা বাসি একজন জানান কবিরের সাথে এলাকার চোর ডাকাতদের সাথে তার ভাল সম্পক । তার বাড়িতে সেখান কার অনেক কিছু পাওয়া যাবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন পাম্প হাউজের চাকরিজীবী জানান বেড়া পাম্প হাউজে যে কি হচ্ছে কতুপক্ষ নজর রাখে না তাহা যথাযথ নজরে নিলে অনেক গোপন রহস্য বের হবে পাম্প হাউজের উত্তর দক্ষিনে পাশে সেখানে কোটি কোটি টাকার মালামাল ছিল যেমন নতুন পুরাতন ছোট বড় গাড়ি সহ যতাংশ ছিল কোটি টাকার ক্যারেন, তামা, লোহা,ট্রাক, ছিল সে গুলো কোথায়। গেল কি হল তার কোন সদিস নেই। পৃূবের পাম্প হাউজ আর এখন কার সেই পাম্প হাউজ আর আগের মত নেই। গাছের আম বিক্রির লক্ষ লক্ষ কোথায় যায় তাহা কারো অজানা নাই । বেড়া বনগ্রামের একজন আম ব্যবসায়ি বলেন আমি একযুগ হল রমেশ বাবুর নিকট হতে আমি ক্রয় করি শুধু তাই না আম, জাম,পেপে, লেবু, পেয়ারা সহ অনেক ফল পাওয়া যায় সেখানে সব টাকা পয়সা সরকারি কোষাগারে জমা না দিয়ে তাদের পকেটে যায় কবির নিজেও অনেক কিছু নড়চর করে তাহা বিক্রি করে সে ঐ পাম্প হাউজের বড় অফিসার হয়ছে । পাম্প হাউজের উর্ধবতন কর্মকর্তার দৃষ্টি আকর্ষন করেন বলেন বেড়া পাম্প হাউজের দিকে নজর দেওয়ার জন্য । রমেশ বাবুর সাথে ফোনে এই ০১৭১২০০৩২৪৮ যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন নিউজ করেন না দেখা করেন ।