পদ্মা সেতু বাঙালির গর্বের ও অহংকারের প্রতিক: এমপি নূরুজ্জামান বিশ্বাস

ডেইলি ভিশন টুয়েন্টিফোর অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:১৫ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২২

পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নূরুজ্জামান বিশ্বাস বলেছেন,‘পদ্মা সেতু বাঙালির গর্বের ও অহংকারের প্রতিক। পদ্মা সেতু ছিল স্বপ্নের মতো, যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দৃশ্যমান করেছেন। পদ্মা সেতু বাংলাদেশকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে। নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ বিশ্বের বুকে বাঙালির জাতি এবং বাংলাদেশের মর্যাদা বাড়িয়েছে। আজ প্রমাণ হয়েছে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা যে ওয়াদা করেন, তা বাস্তবে রূপদান করেন। শেখ হাসিনার মতো ভিশনারি লিডারশীপ আছে বলেই দেশকে দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।

শুক্রবার (১৭ জুন) রাতে পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে এমপি’র বাসভবনে ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

এমপি বিশ্বাস আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমাদের চাওয়ার কিছু নেই, না চাইতেই তিনি আমাদের যা দিয়েছেন এ জন্য আমরা ঈশ্বরদী ও আটঘোরিয়াবাসী তাঁর কাছে কৃতজ্ঞ। তিনি অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখিয়ে দিয়েছেন। পদ্মা সেতু ছিল এক রকম স্বপ্নের মতো, যা তিনি দৃশ্যমান করেছেন। শেখ হাসিনা শুধু স্বপ্ন দেখেনই না, তা বাস্তবায়নও করেন।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার ভিশনারি নেতৃত্বের কারণে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল রাষ্ট্রের স্বীকৃতি পেয়েছে। ঈশ্বরদীতে দেশের বৃহত্তম বাজেটের রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মান কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চরেছে। দেশে অর্থনৈতিক অঞ্চল করা হচ্ছে। সেখানে এক কোটি মানুষের কর্মসংস্থান হবে। ৫০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয় বাড়বে। এ ধারা অব্যাহত থাকলে আমরা ২০৪১ সালের আগেই আমরা উন্নত বাংলাদেশ দেখতে পাবো।

মুজিব বাহিনীর আঞ্চলিক প্রধান বিশ্বাস বলেন, বাঙালি তার অর্থনৈতিক মুক্তির পথে যখন একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইল ফলক অতিক্রম করতে যাচ্ছে, ঠিক সেই সময়ে বিএনপি এবং তার মিত্ররা হিংসা আর ক্ষোভের আগুনে জ্বলে পুড়ে ছাড়খাঁর হচ্ছে । বাংলাদেশের এই মহা অর্জনের উৎসবকে তারা ম্লান করার লক্ষ্যে নাশকতার আশ্রয় নিয়েছে। জাতির গৌরবের এই মহা অর্জন উদযাপনের ঐতিহাসিক ঘটনাটিকে নস্যাৎ করাই তাদের উদ্দেশ্য। এরা দেশের শত্রু, এরা জাতীয় স্বার্থকে বিপন্ন করতে চায়, এরা বার বার মানবতার উপর আঘাত করতে চায়। সময় এসেছে এদের প্রতিরোধের । মানবতা বিরোধী এই দুষ্টচক্রকে আমাদের রুখে দিতে হবে । জাতীয় স্বার্থ রায়, মানুষের জীবন- জীবিকা রায় এই অপশক্তির বিরুদ্ধে সকলকে প্রস্তুত থাকতে হবে। তবে এই অপশক্তিকে রুখে দেয়ার শক্তি ও সামর্থ্য আমাদের রয়েছে। এই অপশক্তিকে সামাজিকভাবে মোকাবেলা করতে হবে। এখন সময় এসেছে এদের বর্জন করার।