ভারত থেকে পণ্য আমদানীতে রেকর্ড:

পাকশী বিভাগীয় রেলে পণ্য পরিবহণে রাজস্ব আয় বেড়েছে

ডেইলি ভিশন টুয়েন্টিফোর অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ২:৪৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০২২

স্বাধীনতার পর এই প্রথম ভারত হতে পণ্য পরিবহণে পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগে পণ্য পরিবহনে ২০২০-২১ (জুলাই-জুন) অর্থবছরে রাজস্ব আয় করেছে ১৮৩ কোটি ৪১ লাখ ২৮ হাজার ২২৩ টাকা। পাথর, গম, চাল, ভুট্টা, সিমেন্ট ও পশু খাদ্যের কাঁচামালসহ সহ বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী ট্রেন যোগে ভারত থেকে আমদানী করা হয়। চলতি অর্থবছরে ভারত হতে সর্বোচ্চ পণ্যবাহী রেক দেশে এসেছে। এতে বাংলাদেশ-ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্ব দৃঢ় হয়েছে বলে মনে করছেন রেলওয়ে কর্মকর্তারা।

ঈশ্বরদীর পাকশীতে বিভাগীয় রেলওয়ের সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা সাজেদুল ইসলাম বাবু জানান,  রাজস্ব আয় বাড়াতে পণ্যবাহী ট্রেনগুলোর দিকে বেশি নজর দেওয়া হয়ছে। ২০১৯-২০ (জুলাই-জুন) অর্থবছরে আয় হয়েছিল ১০২ কোটি ৪৬ লাখ ৯৬ হাজার ৮১৬ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যবধানে  (জুলাই-জুন) রাজস্ব আয় বেড়েছে ৮০ কোটি ৯৪ লাখ ৩১ হাজার ৪০৭ টাকা।  চলতি অর্থবছরে ভারত থেকে মালবাহী ট্রেনের কোচ এসেছে ১ হাজার ৬১৩টি। পাকশী বিভাগে বিভিন্ন আন্তঃনগর যাত্রীবাহী ট্রেন থেকে আয় হয়েছে ১৫৭ কোটি ২৫ লাখ ৫০ হাজার ৭৩৮ টাকা। যাত্রীবাহী ট্রেনের চেয়ে মালবাহী ট্রেনে রাজস্ব আয় ২৬ কোটি ১৫ লাখ ৭৭ হাজার ৪৮৫ টাকা আয় বেশি হয়েছে।

পাকশী বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিও) আনোয়ার হোসেন জানান, স্বাধীনতার ৫০ বছর পর ভারত থেকে সর্বোচ্চ রেক বাংলাদেশ এসেছে। এছাড়া গত অর্থবছরের তুলনায় চলতি বছরে পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের রাজস্ব আয় অনেক বেড়েছে।

পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) শহীদুল ইসলাম জানান, কম সময়, স্বল্প খরচে ভারত হতে দেশে ট্রেনযোগে পণ্য নিয়ে আসা যায়। ট্রেনে পণ্যসামগ্রী আসার কারণে রেলওয়ের রাজস্ব আয় বেড়েছে। দু’দেশের মধ্যে পণ্যবাহী রেল যোগাযোগ হওয়ার পর চলতি অর্থবছরে সর্বোচ্চ পণ্যবাহী রেক দেশে এসেছে। স্বাধীনতার পর প্রথম রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। এতে বাংলাদেশ-ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্ব দৃঢ় হয়েছে বলে মনে করছেন এই রেলওয়ে কর্মকর্তা।