আধুনিকায়নের ছোঁয়া লাগেনি ঈশ্বরদী রেলগেটে

ডেইলি ভিশন টুয়েন্টিফোর অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ২:২৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২২

বাংলাদেশ রেলওয়েতে অনেক কিছুরই আধুনিকায়ন ও পরিবর্তন হয়েছে। ডিজিটাল পদ্ধতির প্রবর্তনে নতুন নতুন নিয়মে আধুনিক ব্যবস্থা বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই এখন দৃশ্যমান। ট্রেন যাতায়াতের জন্য আধুনিক ডিজিটাল লক সিস্টেম রেলগেটের ব্যবস্থাপনাতেও আনা হয়েছে । কিন্তু পশ্চিম রেলের বৃহত্তম ঈশ্বরদী স্টেশনের প্রধান রেলগেটের কার্যক্রম এখনো ব্রিটিশ আমলের নিয়মেই চলছে। ইতোমধ্যে দেশের বেশ কয়েকটি রেলগেট নতুন ডিজিটাল পদ্ধতির আওতায় এলেও ব্রিটিশ নিয়মেই পরিচালিত হচ্ছে ঈশ্বরদী রেলগেট। এই রেলগেটের পাশেই রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের জন্য নতুন রেললাইন নির্মাণ এবং ট্রেনের সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও রেলগেটের সমস্যার সমাধান হয়নি।

সূত্র জানায়, ঈশ্বরদী রেলওয়ে গেট দিয়ে প্রতিদিন ২৫ থেকে ৩০টি ট্রেন যাতায়াত করে। প্রতিটি ট্রেন চলাচলের সময় ১৫ থেকে ২০ মিনিটের জন্য রেলগেট বন্ধ হলে স্থবির হয়ে পড়ে দু’পাশের যোগাযোগ। জনসংখ্যা ও সড়কযান বৃদ্ধি পাওয়ায় এতে প্রকট হচ্ছে জনদুর্ভোগ। স্থবিরতার কারণে সৃষ্টি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট । জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় বেকায়দায় পড়তে হচ্ছে স্থানীয় জনগোষ্ঠিকে। বিশেষ করে জরুরি প্রয়োজনে ফায়ার সার্ভিস এবং রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্সকে অপেক্ষার প্রহর গুনতে হয় । স্কুল-কলেজের পরীক্ষার্থী এবং কর্মস্থল থেকে বের হয়ে বন্ধ রেলগেটে ঠায় দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। ব্রিটিশ নিয়মের ব্যবস্থাপনায় নিয়ন্ত্রিত ঈশ্বরদী রেলগেটের ভোগান্তি স্থানীয় জনগোষ্ঠির গলার কাটায় পরিণত হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার পি এম ইমরুল কায়েস জানান, ঈশ্বরদীবাসীর প্রতিদিনের এই দুর্ভোগ ও অন্যতম প্রধান সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত ‘রেলগেট সমস্যা’র সমাধানের জন্য জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে একটি ফ্লাইওভার নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়েছে ।

পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নুরুজ্জামান বিশ্বাস ঈশ্বরদী রেলগেট গলার কাটা জানিয়ে বলেন, রেলগেটের সমস্যা সমাধানে জাতীয় সংসদে প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়েছে। ফ্লাইওভার নির্মাণের জন্য বিভিন্ন দফতরে যোগাযোগের পর একটি টিম এসে সার্ভে করেছে। এলজিইডি’র অধীনে ফ্লাইওভার নির্মাণের জন্য প্রকল্প এবং পিডি নিয়োগের বিষয়ে কাজ চলছে বলে তিনি জানিয়েছেন।