শিশু ও বয়স্করা কোল্ড ডায়রিয়া ও ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত

তীব্র শীতে ঈশ্বরদীর জনজীবনে দূর্ভোগ

ডেইলি ভিশন টুয়েন্টিফোর অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:১০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৩, ২০২২

ঘন কুয়াশা ও হিমেল বাতাসের কারণে ঈশ্বরদীর জনজীবনে নেমে এসেছে দূর্ভোগ। কনকনে শীতের তীব্রতায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। একদিনের ব্যবধানে সোমবার ঈশ্বরদীর তাপমাত্রা ২.৫ ডিগ্রী নেমে গেছে। সোমবার (৩ জানুয়ারী) সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রবিবার তাপমাত্রা ছিল ১৩ ডিগ্রী সেলসিয়াস। দিনের বেলাও আগুন জ্বালিয়ে শীত নিবারণ করছেন দরিদ্র মানুষেরা। কনকনে ঠান্ডায় বৃদ্ধ এবং শিশুরা বেশি দূর্ভোগে পড়েছেন। ইতোমধ্যেই কোল্ড ডায়রিয়া ও ঠান্ডাজনিত রোগে অনেকেই আক্রান্ত হয়েছে।

Dailyvision24.com

সোমবার (৩ জানুয়ারি) সরেজমিনে দেখা যায়, ঈশ্বরদীর ওপর দিয়ে বয়ে চলা শৈত্যপ্রবাহের কারণে ও ঘন কুয়াশায় যবুথবু হয়ে পড়েছে স্বাবাভিক জীবনযাত্রা। সূর্যের দেখা মেলে সকাল ১১টার পর। ফলে কোথাও কোথাও দিনের বেলাও আগুন জ্বালিয়ে শীত নিবারণ করছেন দরিদ্র মানুষেরা। পাশাপাশি অসহায় ছিন্নমূল মানুষদের ভিড় ল্য করা গেছে ফুটপাতে কমদামী পুরাতন গরম কাপড়ের দোকান গুলোতে।

এছাড়া অতিরিক্ত ঠান্ডার কারণে হাসপাতালে ও ডাক্তারের চেম্বারে ডায়রিয়া আক্রান্ত শিশুদের ভীড় দেখা গেছে । পরিবার পরিকল্পনার শিশু চিকিৎসক ডাঃ আব্দুল বাতেন জানান, কোল্ড ডায়রিয়া এবং ঠান্ডাজনিত রোগে সবচেয়ে শিশুরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। বিপুল সংখ্যক শিশুদের চিকিৎসা দিতে হিমসিম খেতে হচ্ছে।

এদিকে অতিরিক্ত ঠান্ডার কারণে বোরো জমির বীজতলা পলিথিনে ঢেকে রেখে, রাতে পানি দিয়ে সকালে বের করে দেওয়ার জন্য কৃষকদের ছাই ছিটিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে বলে কৃষি কর্মকর্তা মিতা সরকার জানিয়েছেন।

অসহায় ছিন্নমূল মানুষদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ হতে ৩,৭৫৯টি কম্বল দেয়া হয়েছে ৭টি ইউনিয়ন ও পৌরসভায়। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় থেকে কম্বল কেনার জন্য ৭ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তৌহিদুর ইসলাম প্রিন্স।

ব্যক্তিগত উদ্যোগে আওয়ামী লীগ নেতা ব্যরিষ্টার সৈয়দ আলী জিরু, সাবেক ভূমি মন্ত্রীর পুত্র ও আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপকমিটির সদস্য সাকিবুর রহমান শরীফ কনক অসহায় মানুষের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন।