ঈশ্বরদীর ব্যাংকগুলোতে বেসামাল ভীড়

ডেইলি ভিশন টুয়েন্টিফোর অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:১২ পূর্বাহ্ণ, মে ৯, ২০২১

মাসের প্রথম থেকেই ঈশ্বরদীর ব্যাংকগুলোতে জনসমাগম বেশী থাকলেও গত ৫ মে থেকে ভীড়ে ও গাদাগাদিতে বেসামাল অবস্থা। প্রখর রোদের মধ্যেই সকাল থেকে রাস্তায় নারী ও পুরুষ গ্রাহকদের দাঁড়িয়ে দেখা গেছে। ভেতর-বাইরে একই অবস্থা। সরকারের স্বাস্থ্য বিধির বিধানের কারো কোন তোয়াক্কা নেই। সোনালী ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, প্রিমিয়ার ব্যাংকসহ সরকারি-বেসরকারি সবকটি ব্যাংকেই একই চিত্র দেখা গেছে।

শুক্র ও শনিবারের সাপ্তাহিক ছুটি কাটিয়ে মাসের প্রথমে রবিবার (৯ মে) ব্যাংকের প্রথম কর্মদিবস শুরু হয়। ব্যাংক খোলার আগেই গ্রাহকরা ব্যাংকের সামনে জমিয়েছেন ভীড়। ব্যাংকের ভেতরে ও বাইরে গাদাগাদি-ঠাসাঠাসি করে গ্রাহকদের অপেক্ষা করতে দেখা যায়।

বেতন-বোনাস তুলতে অনেকেই এসেছেন । আবার ডিপিএসের টাকা জমা দেওয়ার জন্যও ভীড়। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের বিভিন্ন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৩০ হাজার শ্রমিক বর্তমানে কর্মরত রয়েছে। এছাড়া ইপিজেডে, প্রাণ কোম্পানীসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে প্রায় ২০ হাজার শ্রমিক-কর্মচারী কাজ করছেন। এসব প্রতিষ্ঠানের বেতন-বোনাস ব্যাংকের মাধ্যমে পরিশোধ হয়।

শ্রমিক-কর্মচারীরা জানান, টাকার প্রয়োজনই স্বাস্থ্য বিধি মানা সম্ভব হচ্ছে না। স্কুল-কলেজসহ সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরতদের বেতনের সাথে বোনাস দেয়া হয়েছে। বোনাস তুলে ঈদের কেনাকাটার জন্য অনেকে এসেছেন ব্যাংকে টাকা তুলতে।
করোনার কারণে পরিস্থিতি ভিন্ন হলেও টাকা-পয়সার প্রয়োজনে গ্রাহকরা স্বাস্থ্য বিধির তোয়াক্কা করছেন না।