সাংবাদিক রোজিনার মুক্তির দাবীতে পাবনায় বিশাল মানববন্ধন

ডেইলি ভিশন টুয়েন্টিফোর অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৫৫ অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০২১

পিপ : প্রথম আলোর সিনিয়র সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থাকারীদের বিচার এবং তাঁর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে পাবনায় মানববন্ধন কর্মসুচি পালিত হয়েছে। পাবনা প্রেসক্লাব ঘোষিত তিনদিনের কর্মসুচির দ্বিতীয় দিন গতকাল বুধবার সকালে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে পাবনা রিপোর্টার্স ইউনিটি, পাবনা সংবাদপত্র পরিষদ, জেলা টেলিভশন ও অনলাইন সাংবাদিক সমিতি, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি, পাবনা জেলা শাখা, প্রথম আলো বন্ধুসভা, ড্রামা সার্কেলসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও সাংবাদিক নেতাকর্মীরা অংশ গ্রহণ করেন।
মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য দেন পাবনা প্রেসক্লাব সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান, সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদ, প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা রবিউল ইসলাম রবি, জেলা সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি আব্দুল মতীন খান, পাবনা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহসভাপতি মির্জা আজাদ, সহসভাপতি সম্পাদক শহীদুর রহমান শহীদ, পাবনা প্রেসক্লাবের সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ইয়াদ আলী মৃধা পাভেল, দি বাংলাদেশ টু-ডে প্রতিনিধি আব্দুল হামিদ খান প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা দ্রুত সময়ের মধ্যে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে মুক্তিসহ তার উপরে হয়রানীমূলক মিথ্যা অভিযোগ প্রত্যাহারসহ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেসার শাস্তি দাবী করেন।
বক্তরা বলেন, সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম দেশের সার্থে কাজ করেন। তিনিই দেশের মানুষের কাছে স্বাস্থ্যখাতের লাগামহীন দূর্নীতির প্রতিবেদন তুলে ধরেছেন। তাঁকে হেনস্থা করা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে আটকে রাখা মানে সংবাদ পত্রের স্বাধীনতা ক্ষুন্ন করা। দেশের মানুষের তথ্য অধিকার খর্ব করা।
প্রসঙ্গত, সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থার প্রতিবাদ ও তাঁর নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে পাবনা প্রেসক্লাব তিন দিনের কর্মসুচি ঘোষণা করে। কর্মসুচিতে মঙ্গলবার বিক্ষোভ-সমাবেশ, বুধবার মানববন্ধন পালিত হয়। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় প্রেসক্লাব সড়কে প্রতিকি অনশন কর্মসুচি পালিত হবে।
বক্তারা বলেন, সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম দেশের সার্থে কাজ করেন। তিনিই দেশের মানুষের কাছে স্বাস্থ্যখাতের লাগাতার দূর্নীতি তুলে ধরেছেন। তাঁকে হেনস্থা করা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে আটকে রাখা মানে সংবাদ পত্রের স্বাধীনতা ক্ষুন্ন করা। দেশের মানুষের তথ্য অধিকার খর্ব করা। ফলে পাবনায় কর্মরত সাংবাদিকরা এই ঘটনার তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি দাবি করে। একই সঙ্গে সাংবাদিকের কলমকে জনগণের সার্থে ব্যবহারের জন্য রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করে। অবিলম্বে রোজিনা ইসলামকে মুক্তি না দেয়া হলে জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে আরও বৃহত কর্মসুচি দেয়া হবে।
সভাপতির বক্তব্যে এ বি এম ফজলুর রহমান বলেন, দূর্নীতি ও লুটপাটের কথা লিখতে গিয়ে একজন দেশ সেরা সাংবাদিককে এভাবে হয়রানী পুরো সাংবাদিক সমাজের হয়রানী। স্বাধীন দেশের জন্য এটা লজ্জার ঘটনা। আমরা এর তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।