ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়ায় গর্ভবতী গৃহবধূ খুন, স্বামী ও খুনি আহত

ডেইলি ভিশন টুয়েন্টিফোর অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২১, ২০২১

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়ায় শারমিন খাতুন শিলা (৩২) নামের এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে কুপিয়ে হতা করা হয়েছে। নিহত গৃহবধূ দাশুড়িয়া মুনসিদপুর এলাকার ব্যবসায়ী রানাউর রহমানের সহধর্মিণী। মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) সকাল আনুমানিক পৌনে ৭ টার দিকে এঘটনা ঘটে। এসময় নিহতের স্বামী রানাও আহত হয়। এলাকাবাসী ওই দূর্বৃত্তকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান আসাদ গৃহবধূ খুন এবং আহত অবস্থায় খুনি সুমনকে আটকের ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।

Dailyvision24.com

গৃহবধূ মিলার একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। ঈশ্বরদী পৌর এলাকার আকবরের মোড় মশুড়িয়াপাড়া মহল্লার মৃত রহমত আলীর মেয়ে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) শ্বশুর আলহাজ্ব হবিবুর রহমান ফজরের নামাজ পড়ে শ্বাশুড়িকে নিয়ে প্রাতভ্রমণে বের হয়। আর গৃহবধূ শিলা চারতলা বাড়ির রান্নাঘরে কাজ করছিলেন। বাড়িতে লোকজন না থাকায় ওই গ্রামের মৃত আজগর আলী মৌলবীর ছেলে রাজমিস্ত্রির লেবার সুমন (৩৫) রান্নাঘরে ঢুকে শিলাকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। গৃহবধূ শিলা নিজের প্রাণ বাঁচাতে দৌড়ে বাড়ির ছাদে আশ্রয় নেয় এবং চিৎকার- চেঁচামেচি করতে থাকে। ঘাতক সুমন ছাদে গিয়েও কোপাতে থাকে। চিৎকার শুনে স্ত্রীর প্রাণ বাঁচানোর জন্য এসময় শিলার স্বামী নীচতলা থেকে ছাদে উঠলে দু’জনের ধস্তাধস্তি শুরু হয়। ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে ঘাতক সুমন ছাদ থেকে নীচে পড়ে আহত হয়। সুমনের রামদা’র কোপে এসময় রানাও আহত হয়। এলাকাবাসী সুমনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। সে এখন ঈশ্বরদী হাসপাতালে পুলিশী হেফাজতে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

শিলার স্বামী রানা পাবনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বলে থানার ওসি জানিয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে নিহত গৃহবধূর লাশ সুরতাহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা মর্গে পাঠিয়েছে।