ঈশ্বরদীতে করোনা আক্রান্ত সর্বাধিক: আক্রান্ত ২১৯ জন আইসোলেশনে

ডেইলি ভিশন টুয়েন্টিফোর অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৩৭ অপরাহ্ণ, মে ৩, ২০২১

ঈশ্বরদী সংবাদদাতাঃ
পাবনা জেলায় ঈশ^রদীতে সবচেয়ে সর্বাধিক করোনা আক্রান্ত হয়েছে। গত ১৫ দিনে ঈশ^রদীতে ২১৯ জন করোনা সনাক্ত হয়েছেন। ইতোমধ্যে এক নারীসহ করোনা আক্রান্ত ৪ জনের মৃত্যুর খবর জানা গেছে। আক্রান্ত রোগী বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন বলে ঈশ^রদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: আসমা খান জানিয়েছেন।
পাবনা জেলা সিলিভ সার্জন ডা: আব্দুল মোমেন জানান, সারা দেশের মতো জেলায়ও করোনা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে জেলার মধ্যে ঈশ^রদীতে আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশী বলে জানান তিনি।
ঈশ^রদী হাসপাতাল থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, গত ১৫ দিনে ঈশ^রদী হাসপাতালের মাধ্যমে করোনা পরীক্ষায় ১৭ জনের পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। এছাড়া রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র এলাকায় বেসরকারীভবে নমুনা পরীক্ষায় ২০২ জনের করোনা সনাক্ত হয়েছে। ওই এলাকায় নমুনা পরীক্ষার জন্য ভাসমান বেসরকারি ৬টি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এদের মধ্যে ফেমাস স্পেশালাইজড এবং বিএমএফআর থেকেই ২০২ জনের করোনা সনাক্তের রিপোর্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে রয়েছে।
এদিকে গত কয়েকদিনে ঈশ^রদীতে এক নারীসহ ৪ জনের করোনায় মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। করোনায় আরো মৃত্যুর ঘটনা ঘটলেও প্রকাশ করা হচ্ছে না বলে সংশ্লিষ্ঠরা জানিয়েছেন।
রূপপুর পারমানবিক প্রকল্পের কর্মরতদের জন্য দ্রুত করোনা পরীক্ষার জন্য এখন বেসরকারিভাবে ৬টি ভ্রাম্যমান ল্যাব কাজ করছে। এদের রিপোর্ট ১২ ঘন্টার মধ্যেই পাওযা যাচ্ছে। কিন্তু সাধারণ মানুষের জন্য সরকারিভাবে হাসপাতলে করোনা পরীক্ষার হার খুবই নগণ্য। কারণ হাসপাতালে নমুনা দিলে সিরাজগঞ্জ থেকে রিপোর্ট পেতে সময় লাগে ৮-১০ দিন। তবে এখন ৪-৫ দিনের মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে বলে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানিয়েছেন।
প্রসঙ্গত: পুরাতন বৃহত্তর পাবনা জেলায় পিসিআর ল্যাব এখনও বসেনি। ফলে করোনার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পেতে দীর্ঘসূত্রিতার কারণে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়লেও সনাক্ত হচ্ছে না।